বাদাম
Home » শীতকালে কেন বাদাম খাবেন
এক নজরে স্বাস্থ্য

শীতকালে কেন বাদাম খাবেন

লাইফস্টাইল ডেস্ক: শীতের আবহ শুরু না হতেই সর্দি-কাশিতে ভোগেন অনেকেই। এর থেকে রেহাই পেতে বাদাম খেতে পরামর্শ দিচ্ছেন পুষ্টিবিদরা। বাদামের পুষ্টিগুণের কথা অনেকেই জানা।

জেনে নিন বাদামের উপকারিতা

১. রোগ প্রতিরোধ ক্ষমতা জোরদার করতে সাহায্য করে। ভিটামিন সি বাদামেও পাওয়া যায়। যা শীতে সর্দি-কাশির মতো সমস্যা প্রতিরোধ করে। প্রতিদিন বাদাম খেলে রোগ প্রতিরোধ ক্ষমতা শক্তিশালী হয় এবং শরীর ভেতর থেকে শক্তিশালী হয়।

২. হার্টের জন্য বাদাম খুবই উপকারী। বাদামে প্রচুর পরিমাণে অ্যান্টিঅক্সিডেন্ট এবং মিনারেল থাকে। যা হার্ট অ্যাটাক এবং হৃদযন্ত্রজনিত অন্যান্য সমস্যা কমিয়ে দেয়। বাদামে ট্রিপটোফ্যানও থাকে যা ডিপ্রেশন কমাতেও সাহায্য করে। শীতকালে অনেক ডিপ্রেশনে ভোগেন, যার সমাধান আছে বাদামে।

৩. বাদাম স্বাস্থ্যের পাশাপাশি ত্বকের জন্যও অনেক উপকারী। বাদামে উপস্থিত মনোস্যাচুরেটেড অ্যাসিড ত্বককে হাইড্রেটেড রাখে এবং ত্বকে উজ্জ্বলতা নিয়ে আসে। শীতকালে ত্বকের নানা সমস্যা ভোগেন অনেকে। যার থেকে মুক্তি দিতে পারে বাদাম।

৪. বাদাম ডায়াবেটিক নিয়ন্ত্রণেও অনেকটা সাহায্য করে। এর মধ্যে রয়েছে ম্যাংগানিজ খনিজ দ্রব্য। এই খনিজ উপাদানটি ফ্যাট, কার্বোহাইড্রেট, মেটাবলিজম, কোষে ক্যালসিয়াম শোষণ এবং ব্লাড সুগার কমাতে সাহায্য করে।

৫. দেহে খারাপ কোলেস্টেরল কমাতে সাহায্য করে বাদাম। রক্তে মনোস্যাচুরেটেড এবং পলিস্যাচুরেটেড ফ্যাটের মাত্রা নিয়ন্ত্রণ করে। বাদামে রয়েছে ওলেয়িক অ্যাসিড। যা রক্তে খারাপ কোলেস্টেরল কমিয়ে ভালো কোলেস্টেরল বারিয়ে তোলে।

৬. দেহে করোনারি আর্টেরি রোগ প্রতিরোধেও বাদামের ভূমিকা অপরিসীম।

৭. বাদামে প্রোটিন ভরপুর থাকে। যা কি না দেহকোষের বৃদ্ধিতে সাহায্য করে। শিশুদের বৃদ্ধির ক্ষেত্রে বাদামের ভূমিকা অনেকটা। এর মধ্যে দুধের গুণাগুণও থাকে অনেকটা। তাই কেউ যদি দুধ খেতে না পারেন সেক্ষেত্রে বাদাম বিকল্প হতে পারে।

৮. ক্যানসার কমানোর ক্ষেত্রেও সহায়তা করে বাদাম।

বিএনএ/ এমএইচ