নারায়ণগঞ্জ
Home » মসজিদে এসি বিস্ফোরণ: ১১ অগ্নিদগ্ধ মুসল্লির মৃত্যু
এক নজরে টপ ফোর ঢাকা সর্বশেষ

মসজিদে এসি বিস্ফোরণ: ১১ অগ্নিদগ্ধ মুসল্লির মৃত্যু

Spread the love

বিএনএ, ঢাকা: নারায়ণগঞ্জের পশ্চিম তল্লা বায়তুল সালাহ জামে মসজিদে এসি বিস্ফোরণে গুরুতর অগ্নিদগ্ধ চিকিৎসাধীন ৩৭জনের মধ্যে ১১ জন রাতেই মারা গেছেন। বাকিদের অবস্থাও সংকটাপন্ন।মৃত্যুবরণকারীদের মধ্যে মসজিদের মোয়াজ্জিনও রয়েছেন। শেখ হাসিনা জাতীয় বার্ন অ্যান্ড প্লাস্টিক ইনস্টিটিউট সূত্রে এ তথ্য জানা গেছে।

শুক্রবার(৪ সেপ্টেম্বর) এশার ফরজ নামাজের পর সুন্নত নামাজ আদায়কালে বিস্ফোরণের ঘটনা ঘটেছে। এতে অন্তত ৪০ জন মুসল্লি অগ্নিদগ্ধ হয়েছেন। এর মধ্যে আহত ৩৭ জন শেখ হাসিনা জাতীয় বার্ন অ্যান্ড প্লাস্টিক ইনস্টিটিউট ভর্তি হন।

স্থানীয়রা জানান, এশার নামাজ চলাকালে হঠাৎ বিকট শব্দে ৬টি এসি একযোগে বিষ্ফোরিত হয়। সাথে সাথে মুসুল্লিদের শরীরে আগুন ছড়িয়ে পড়ে। ঘটনায় অর্ধশতাধিক মুসল্লি আহত হন।

শেখ হাসিনা জাতীয় বার্ন অ্যান্ড প্লাস্টিক ইনস্টিটিউট এর সমন্বয়কারী ডা. সামন্ত লাল সেন গণমাধ্যমকে জানান, অগ্নিদগ্ধ চিকিৎসাধীনদের অবস্থা স্থিতিশীল।তাদের অনেকের শরীরের ৫০-৭০ভাগ পুড়ে গেছে।

এর আগে শুক্রবার দিবাগত রাত পৌনে ১টার দিকে জাতীয় শেখ হাসিনা বার্ন ও প্লাস্টিক সার্জারি ইনস্টিটিউটে চিকিৎসাধীন অবস্হায় জুবায়ের জুয়েল(৭) এর মৃত্যু হয়। এ ঘটনায় শিশুটির বাবা মো. জুলহাস (৪৫) দগ্ধ অবস্থায় এই ইনস্টিটিউটে চিকিৎসাধীন রয়েছেন। তার অবস্হায়ও আশংকাজনক।

শিশুটির মৃত্যুর বিষয়টি নিশ্চিত করেন ইনস্টিটিউটের পরিচালক ডা. আবুল কালাম জানান, শিশুটির শরীরের ৯৫ শতাংশ পোড়া গেছে। শিশুটি তার বাবা জুলহাসের সঙ্গে মসজিদে গিয়েছিল নামাজ আদায় করতে। সেখানেই এসি বিস্ফোরণের ঘটনায় বাবা-ছেলে দগ্ধ হন।

উল্লেখ্য, শুক্রবার রাত পৌনে ৯টার দিকে নারায়ণগঞ্জ সদর উপজেলার ফতুল্লার পশ্চিমতল্লা এলাকার বাইতুস সালাত জামে মসজিদের এয়ার কন্ডিশনার (এসি) বিস্ফোরণের ঘটনা ঘটে। মুহূর্তের মধ্যে মসজিদের ভেতরে থাকা প্রায় ৪০থেকে ৪৫ জনের মধ্যে আতঙ্ক ছড়িয়ে পড়ে। হুড়োহুড়ি করে বের হওয়ার চেষ্টা করেন তারা। তাদের মধ্যে দগ্ধ অবস্থায় ৩৭ জনকে জাতীয় শেখ হাসিনা বার্ন অ্যান্ড প্লাস্টিক সার্জারি ইনস্টিটিউটে ভর্তি করা হলে এর মধ্যে শিশু জুবায়ের মারা যায়। নিহত শিশু ওই এলাকাতেই পরিবারের সঙ্গে বসবাস করতো।

বিএনএ/ আহা, এসজিএন